জিমেইল একাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে ১০টি কার্যকরী টিপস।


আজকাল হ্যাকাররা গুগোল থেকে ডাটা সংগ্রহ করতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে। হ্যাকাররা সবসময় গুগোলর তথ্য সমূহ হ্যাক করার চেষ্টা করে। এইভাবে হ্যাক করার ফলে বড় বড় প্রতিষ্ঠান ও ব্যাক্তিগত ভাবে অনেকই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হ্যাকাররা প্রথমে গুগলের জিমেইল একাউন্ট কে (Gmail Account) টার্গেট করে।

জিমেইল একাউন্ট

গুগোলের অন্যতম টুল বা চাবি হচ্ছে জিমেইল। জিমেইল একাউন্ট কে কীভাবে সুরক্ষিত রাখবেন সেই বিষয়ে আমরা কতগুলি দরকারি টিপস ও ট্রিক্স প্রদান করেছি। আশাকরি এই পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করলে আপনারা জি-মেইল হ্যাকার থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ ও বিপদমুক্ত হতে পারিবেন।

প্রায় বেশীরভাগ মানুষ জিমেইলের একাউন্ট পাসওয়ার্ড তৈরি করতে গিয়ে অনেক দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন, ফলে জি-মেইল হ্যাকারদের শিকার হন। তাই জিমেইল ব্যবহারকারীর সুবিধার্থে আমরা কতগুলো ট্রিক্স প্রদান করবো যেগুলি আপনাদের জি-মেইল পাসওয়ার্ড তৈরিতে অনেক সাহায্য করবে।


আপনারা দেখেনিন কীভাবে শক্তিশালী বা স্ট্রং পাসওয়ার্ড তৈরি করা যায়।

জিমেইল একাউন্ট পাসওয়ার্ড

জিমেইল একাউন্ট কে হ্যাকারদের থেকে নিরাপদ রাখার ৯টি ট্রিক্স।

  1. জি-মেইলের একটি শক্তিশালী বা স্ট্রং পাসওয়ার্ড তৈরি করুন। যেমন- আপনার নাম, জন্মের তারিখ, আপনার প্রিয় পোষা প্রাণী, শিশুর নাম অথবা আপনার আঁশপাশের কোন রাস্তার নাম দিয়ে আপনার জিমেইল একাউন্ট পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না। এই রকম কৌশল হ্যাকাররা আপনার লোকেশন ট্র্যাক করে সহজে অনুমান লাগাতে পারে।

a) একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড তৈরির জন্য দৈর্ঘ্যে অত্যন্ত 10 অক্ষর হওয়া চাই। তাই আপনার পাসওয়ার্ডটি যত দীর্ঘ হবে তখন হ্যাকার সহজে ক্র্যাক বা অনুসন্ধান করতে পারবে না।

b) শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরিতে প্রতিটি অক্ষরের মধ্যে কমপক্ষে একটি আপার কেইস ও লোয়ার কেইস থাকা দরকার। এর অর্থ হল পাসওয়ার্ডে ছোট হাতের অক্ষর, বড় হাতের অক্ষর এর সহিত সংখ্যা যুক্ত করা ও বিশেষ অক্ষর অর্থাৎ স্পেশিয়াল কারেক্টর যুক্ত করা।

  1. নিজের জি-মেইলের পাসওয়ার্ড অন্য সাইটে ব্যবহার করবেন না। যদি ওয়েব সাইট ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ব্যবহৃত প্রতিটি ওয়েবসাইটের জন্য পৃথক পৃথক পাসওয়ার্ড তৈরি করা দরকার।

3. আপনি যদি জিমেইল একাউন্ট এর মধ্যে লগিন করে থাকেন তাহলে আপনার সামনে অবশ্যই সেইভ পাসওয়ার্ড করে একটি পপ আপ মেসেইজ বক্স দেখাবে সেখানে আপনারা সেইভ পাসওয়ার্ডে ক্লিক করে রাখবেন না। এতে আপনার পাসওয়ার্ড সেইভ অবস্থায় থাকবে এবং অন্য ইউজার অনায়াসেই আপনার মেইলে ডুকে পড়তে পারবে।

  1. আপনার জি-মেইলের পাসওয়ার্ড কাউকে শেয়ার করবেন না। জি-মেইলের মধ্যে পাসওয়ার্ডটি কেবল আপনি নিজের হাতে এন্টার করুন। যদি কোন দুর্ভাগ্যবশত আপনার জি-মেইলের পাসওয়ার্ডটি আপনার সহপাটি কেউ খুলতে চান তাহলে আপনি তৎক্ষণাৎ জি-মেইলের পাসওয়ার্ডটি বদলে ফেলুন ও পুনরায় নতুন পাসওয়ার্ড তৈরী করুন। এতে আপনি নিরাপদ থাকবেন।
জিমেইল ব্যবহারের কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস-

5. যদি বিশেষ প্রয়জনে আপনি শুধুমাত্র আপনার বিশ্বস্ত কম্পিউটারগুলিতে লগইন করুন। আপনি যদি এমন কোনও অপরিচিত কম্পিউটার ব্যবহার করছেন যা আপনি তার সম্পর্কে ভালো ভাবে জানেন না বা বিশ্বাস করেন না, তবে আপনার জি-মেইলের অ্যাকাউন্টে লগইন করবেন না। আজকাল হ্যাকাররা সাধারণত কম্পিউটার সিস্টেমে অত্যাধুনিক কী লগার ব্যবহার করে থাকে যা আপনার পাসওয়ার্ড সহ টাইপ করা সকল কিছু তথ্য রেকর্ড করতে পারে। এই সকল কম্পুটার থেকে ফিতে আসার পর আপনার নিজের ল্যাপটপ বা কম্পিটারে দ্রুত পাসওয়ার্ডটি পরিবর্তন করে ফেলুন।

6. আপনার জিমেইলের পাসওয়ার্ডের মধ্যে মোবাইল নং দিবেন না। আর বার বার একই পাসওয়ার্ড অন্যান্য ক্ষেত্রে ব্যবহার করবেন না। এতে হ্যাকাররা খুব সহজে অনুমান করিতে পারে।

7. আপনার জি-মেইলের পাসওয়ার্ডটির পুনরুদ্ধার বা একাউন্ট রিকভারীর জন্য একটি ফোন ও আপনার বিকল্প ইমেল যুক্ত করুন। পুনরুদ্ধার ফোন বা ইমেল যুক্ত করা আপনি যদি কখনও নিজের পাসওয়ার্ড ভুলে যান তবে আপনাকে আপনার অ্যাকাউন্টে পুনরায় খুলতে সহজ হয়। ফলে ইহা আপনাকে হ্যাকারদের হাত থেকে ফিরে পাওয়ার পরও পুনরায় নিরাপদ রাখা যায়।

8. আপনার মোবাইল ফোন যদি কাউকে প্রদান করেন তাহলে প্রথমে আপনার জি-মেইলের সমস্ত তথ্য মুছে ফেলুন এবং যাহাকে প্রদান করিবেন তাহাকে বলুন যে নিজের ইমেইল পাসওয়ার্ড তৈরি করে নিতে। না হলে ভবিষ্যতে ঐ মোবাইল থেকে ডাটা লস হওয়ার সম্ভবনা থাকে।

9. আপনার জিমেইল একাউন্ট পাসওয়ার্ড সম্পর্কিত কোন তথ্য আপনার মোবাইল ফোনে নোট করে রাখবেন না। আপনার মোবাইল যদি কোন তৃতীয় ব্যক্তির হাতে আসে তাহলে আপনার জিমেইল সহ সমস্ত তথ্য পেতে পারে ফলে আপনি অনেক অসুবিধার সম্মুখীন হতে পারেন।

ঐ সাইটের অন্যান্য পোস্ট সমুহঃ-

বিয়ের কার্ড কীভাবে তৈরি করবেন/ বিবাহের নিমন্ত্রণ পত্র/বিয়ের ইনভাইটেশন কার্ড

পাট শাক বা নালিয়া শাকে অসাধারণ গুণ। ইহা শরীরের রোগমুক্তিতে কার্যকরী।

আলুর খোসার গুণ । আলুর খোসার মধ্যে অসাধারাণ গুণ লুকিয়ে আছে।


Leave a Comment